| |
               

মূল পাতা জাতীয় ৯ মাসে ৩০৬৭ জন নারী ও শিশু নির্যাতনের শিকার


৯ মাসে ৩০৬৭ জন নারী ও শিশু নির্যাতনের শিকার


  24 November, 2022     03:59 PM    


রহমত নিউজ ডেস্ক

গত ৯ মাসে ৩ হাজার ৬৭ জন নারী ও শিশু নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। ৮৪৮ জন ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। তাদের মধ্যে ২০৫ জন দলবন্ধ ধর্ষণের শিকার। আর ধর্ষণের পর ৩০ জনকে হত্যা করা হয়েছে। ধর্ষণের কারণে আরো ৮ জন আত্মহত্যা করেছেন। অন্যরা নানাভাবে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

আজ (২৪ নভেম্বর) বৃহস্পতিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আন্তর্জাতিক নারীনির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ (২৫ নভেম্বর ১০ ডিসেম্বর) ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস ২০২২ উপলক্ষে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য তুলে ধরে। এবারের শ্লোগান ছিল ‘নারী ও কন্যা নির্যাতন বন্ধ করি, নতুন সমাজ নির্মাণ করি’। সংবাদ সম্মেলনে মহিলা পরিষদ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রিমিনোলজি ডিপার্টমেন্টের যৌথ উদ্যোগে গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। সম্মেলনে ছিলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রিমিনোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান খন্দকার ফারজানা রহমান, মহিলা পরিষদের সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেম, সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু প্রমুখ।

‘নারী ও কন্যার প্রতি যৌন সহিংসতা ও তরুণ প্রজন্মের সম্পৃক্ততার উপর’ প্রস্তুতকৃত গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, বিভিন্ন সমীক্ষা, গবেষণার তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, বাংলাদেশে নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতার চিত্র অত্যন্ত উদ্বেগজনক পর্যায়ে পৌঁছেছে। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ ১৩টি জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতার চিত্র প্রতি মাসে গণমাধ্যমে তুলে ধরে। সেখানে  দেখা যায়, আশংকাজনক হারে ধর্ষণ ও দলবদ্ধ ধর্ষণ বাড়ছে।

জরিপে অংশগ্রহণকারী ৭৯.১ শতাংশ উত্তরদাতা বলেছেন, তারা রাস্তায় পিছু নেওয়া এবং অশালীন মন্তব্যের সম্মুখীন হয়েছেন। ৬০.৫ শতাংশ উত্তরদাতা বলেছেন, তাদের অনুপযুক্তভাবে স্পর্শ বা লাঞ্ছিত করা হয়েছে। ৭ শতাংশ উত্তরদাতা বলেছেন, তারা ইন্টিমেট পার্টনার দারা যৌন সহিংসতার সম্মুখীন হয়েছেন। রাস্তাঘাট ও পাবলিক প্লেস নিরাপদ নয় জানিয়ে ৩৮৪ জন উত্তরদাতার মধ্যে ১৭৭ জন বলেছেন, তারা এসব স্থানে যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন। অপরাধীরা অতীতে অন্যান্য অপরাধের সঙ্গে যুক্ত ছিল, উপযুক্ত শাস্তি না হওয়ায় তরুণরা যৌনসহিংসতায় সম্পৃক্ত হচ্ছে।